মাস্টার নিয়ামত আলীর সরিষার তেল ও খাঁটি মধু বাঁশখালীর ঘরে ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  

মোহাম্মদ হায়দার আলী,নির্বাহী সম্পাদক (দৈনিক অপরাধ অনুসন্ধান):-

 

 

বাঁশখালীর বাহারছড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রবীন শিক্ষক মাস্টার নিয়ামত আলী। তিনি ভিন্ন জেলার বাসিন্দা হলেও বাঁশখালীতে বিবাহ করে বর্তমান বসবাস করেন বাঁশখালী উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়ন এর রত্নপুর গ্রামে। তিনি শিক্ষকতার পাশাপাশি মধু ও সরিসার তেল এর ব্যবসা করেন।খুচরা ও পাইকারি উভয় নিয়মে  বিক্রি করেন তিনি। সরেজমিনে গ্রামবাসী গ্রাহকদের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে জানা যায়,মাস্টার সাহেব নিজে এই মধু ও সরিষার তেল গুলু সংগ্রহ করে নিজস্ব পক্রিয়ায় তৈরি করে সারা বাঁশখালীর ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়ে আসছেন। অত্যন্ত সুলভ মূল্যে খাঁটি  মধু ও সরিষার তেল পাওয়া যাচ্ছে সব সময় তাহার কাছে। তাহার প্রতিষ্ঠানের নাম হিলাল সিউর পিউর। যার রেজিষ্ট্রেশন নং-৪৮৮৫৭। তিনি একজন প্রবীণ ও সফল শিক্ষক হিসেবে যথেষ্ট সচেতন। তিনি তাহার প্রতিষ্ঠান গুলুর লাইসেন্স করিয়েছেন। তাহার মধু ব্যবসার লাইসেন্স নাম্বার বিএসটিআই লাইসেন্স নং সি ৪৭৪২। সরিষার তেল ব্যবসার লাইসেন্স নং-সি ৪৯৫৩। মাস্টার নিয়ামত আলী বলেন,আমি বাঁশখালী কে আমার প্রাণের চাইতে বেশি ভালবাসি। আমার শশুর বাড়ী বাঁশখালী হওয়াতে আমি বাঁশখালীর মানুষ এর উপকার হয় এমন কিছু করার উদ্দ্যোগ নিয়েছি।

আমি দীর্ঘদিন যাবত বাহারছড়া ইউনিয়ন অবস্থিত বাহারছড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করে আসছি।

পাশাপাশি এই হালাল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান টি পরিচালনা করে যাচ্ছি।

আমার পন্যগুলু এখন সারা বাঁশখালীর ঘরে ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে ইনশাআল্লাহ। খাঁটি মধু ও সরিষার তেল সংগ্রহ করতে যোগাযোগ করুন -নিয়ামত আলী এন্টারপ্রাইজ। মোবাইল নং০১৯৩১-৬৫২৭৮৩।


  •  
  •  
  •  
  •