বীর মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগনেতা ডা. এসএ ফারুকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি,কিশোরগঞ্জ জেলা ও যুক্তরাষ্ট্র  আওয়ামী লীগের শোক

  •  
  •  
  •  
  •  

হাকিকুল ইসলাম খোকন:-
নজরুল ইসলাম  স্বপন,বাপসনিউজ,বিশেষ প্রতিনিধি:রাষ্ট্রপতি  এডভোকেট আব্দুল হামিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ও কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা ডা. এসএ ফারুকের মৃত্যুতে গভীর ও শোক দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
এক শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। খবর বাপসনিউজ।
ডা. এস এ ফারুক গত ১৪ জুলাই বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও হাসপাতালে মারা যান। বার্ধক্যজনিত  কারণে তিনি কিছুদিন ধরে সেখানে চিকিৎসাধীন ছিলেন এবং পরে করোনা পজিটিভ হয়।তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।
তিনি চার পুত্র, ৫ কন্যা, নাতী-নাতনী, আত্মীয়-স্বজন ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন ।ঊলেখ্য ,ডাঃ এস এ ফারুক অসুস্হ হয়ে কিশোরগঞ্জ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৫ তলা ৬ নং কেবিনে  ভর্তি হয়ে চিকিত্সাধীন ছিলেন । তিনি ছিলেন ভাষা সৈনিক, সমাজ সংগঠক,মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক,চান্দপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। ডা:এস এ ফারুকের মৃত্যুত্ গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দেন কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য সাবেক আইজিপি ,সাবেক  সচিব নূর মোহাম্মদ , কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযুদ্ধো এডভোকেট কামরুল হোসেন শাহজাহান ও সাধারণ সম্পাদক      বীর মুক্তিযুদ্ধা এডভোকেট এমএ আফজল,যুগম সাধারন সম্পাদক ও জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি এডভোকেট শাহ আজিজুল হক,৮০ দশকের কটিয়াদি কলেজ ছাএ সংসদের ভিপি ও আওয়ামী নেতা ছিদিদকুর রহমান ভুইয়া ছিদিদক,আওয়ামী লীগতেতা একেএম ফায়জুললাহ বাদল,আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম স্বপ্ন,আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী  পরিবারের নেএীবৃন্দ-এর মাঝে বাকসু’র সাবেক জিএস ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. প্রদীপ রঞ্জন কর, আওয়ামী লীগনেতা ও সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন ,বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হোসাইন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন তালুকদার, বীর মুক্তিযোদ্ধা খুরশিদ আনোয়ার বাবলু, বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত আকবর রীচি, বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুল হাসান চেীধুরী , বীর মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান চৌধূরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা মুন্সি বসির ঊদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম,সাংবাদিক হেলাল মাহমুদ,যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা সর্বজনাব রমেশ নাথ, তোফায়েল আহমেদ চৌধূরী, ইঞ্জিঃ মোহম্মদ আলী সিদ্দিকী, এ্যাডভোকেট শাহ মোহম্মদ বকতিয়ার, শরীফ কামরুল আলম হীরা, এমএ করিম জাহাঙ্গীর, ইলিয়ার রহমান, কায়কোবাদ খান ও আশাফ মাসুক,নিউইর্য়ক ষ্টেট আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শাহীন আজমল ,নারীনেএী নুরুন নাহার মেরী,আওয়ামী লীগ নেতা সর্বজনাব মোল্লা মাসুদ, ইঞ্জি: হাসান, ছাদেকুল বদরুজামান পান্না, এ্যাডভোকেট নিজাম আহমেদ, মাহাবুবুল খসরু, সিরাজুল ইসলাম সরকার, মহিলা আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যাপক শাহনাজ মমতাজ ও রুমানা আকতার,মুলধারার রাজনীতিক দেলওয়ার মানিক,শাহারিয়ার শরীফ আহমেদ,শ্রমিক লীগ নেতা মঞ্জুর চৌধূরী, স্বেচ্ছাসেবক ,গ নেতা আশরাফ উদ্দিন,  সুবল দেবনাথ, হাসান জিলানী ও ফরিদা আরভি ,শেখ হাসিনা মঞ্জের নেতা সর্বজনাব জাকির হোসেন হিরু ভূইয়া, মোহম্মদ আকতার হোসেন, জালালউদ্দিন জলিল, ইঞ্জিঃ মিজানুল হাসান, টি মোল্লা, নাদের আলী মাষ্টার, উলফাৎ মোল্লা, দেলোয়ার হোসেন মোল্লা,যুবলীগ নেতা শেখ জামাল হোসেন ও খন্দকার জাহেদুল ইসলাম। মোঃ আলমগীর, ওসমান গনি, বিশ্বজিৎ সাহা, সুহাস বডুয়া, নাসিম পারভান পারু, ফিরোজ আহমেদ কল্লোল ,ফিরোজ মাহমুদ,জাহাংগীর কবির,আতাউর রহমান তালুকদার, শহিদুল ইসলাম, শারমিন তালুকদার ও রাহিমুল হুদা প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •