কোটালীপাড়ায় ইউপি নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় বৃদ্ধ নিহত

ফকির মিরাজ আলী শেখ,

গোপালগঞ্জ থেকে,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

 

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় ইউপি নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় জামাল শেখ (৬৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি উপজেলার হিরণ ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের লোহারংক গ্রামের মৃত লেহাজউদ্দিন শেখের ছেলে এবং জয়ী মেম্বার প্রার্থী জাকির দাড়িয়ার সমর্থক।

 

জানা গেছে, বুধবার (৫ জানুয়ারি) উপজেলার হিরণ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের পরের দিন বৃহস্পতিবার পরাজিত প্রার্থী মুসা বিশ্বাসের সমর্থকরা জয়ী প্রার্থী জাকির দাড়িয়ার সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় জামাল শেখ, জেহাদুল শেখ, মন্টু শেখ, লায়েক শেখ, রিপন শেখ, রেক্সনা বেগম, হাসিবুর শেখ ও সাইয়াদুল ইসলাম আহত হন।

 

আহতদের কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। এখানে গুরুতর আহত জামাল শেখের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ৮ জানুয়ারি  শনিবার দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জামাল শেখ মারা যান।

 

নিহত জামাল শেখের ভাই সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘নির্বাচনের পরদিন বৃহস্পতিবার পরাজিত মেম্বার প্রার্থী মুসা বিশ্বাস লোকজন নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়। এই হামলায় আমার ভাই নিহত হয়েছেন।’

 

নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য জাকির দাড়িয়া বলেন, ‘নির্বাচনে পরাজিত হয়ে আমার প্রতিপক্ষ মুসা বিশ্বাসের লোকজন আমার সমর্থকদের মারধর ও বাড়িঘরে হামলা চালিয়েছে। তাদের মারধরে জামাল শেখ নামে আমার এক সমর্থক নিহত হয়েছেন। আমি এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি।’

 

এ বিষয়ে জানার জন্য মুসা বিশ্বাসের বাড়িতে গিয়ে তাঁকে পাওয়া জায়নি। তাঁর ব্যবহৃত মুঠোফোনের নম্বরটিও বন্ধ পাওয়া যায়।

 

কোটালীপাড়া থানার ওসি মো. জিল্লুর রহমান বলেন, নিহত জামাল শেখের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।