কাশিয়ানীতে কেন্দ্র দখল করে নৌকায় সিল, ভোট স্থগিত

ফকির মিরাজ আলী শেখ, বিশেষ প্রতিনিধি:

 

গোপালগঞ্জের

কাশিয়ানীতে কেন্দ্র দখল করে নৌকায় সিল, ভোট স্থগিত

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে ইউপি নির্বাচনে ভোট কেন্দ্র দখল করে ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল মারার অভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এ সময় বাধা দিতে গেলে দুই পুলিশ সদস্যকে মারধর ও দুজন সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করা হয়। এ ঘটনায় ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার রাতইল ইউনিয়ন পরিষদ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- কনস্টেবল মোহাম্মদ হোসাইন ও কনস্টেবল সুলাইমান। এছাড়া নিউজ২৪ মুন্সি মো. হোসাইন ও এসএ টিভির বাদল সাহাকে লাঞ্ছিত করা হয়।

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, নৌকার প্রতীকের প্রার্থী বিএম হারুন রশিদ পিনুর নেতৃত্বে তিন শতাধিক লোকজন কেন্দ্রে প্রবেশ করে কেন্দ্র দখলে নেয়। তারা আমার ভাইসহ আমার সব এজেন্টেদের মারধর করে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয় এবং ৩০০ ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়ে সিল দেয়।

তবে এ বিষয়ে নৌকার প্রতীকের প্রার্থী বিএম হারুন রশিদ পিনুর বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সেলিম সরদার সাংবাদিকদের বলেন, দুপুর ১২টার দিকে নৌকার প্রার্থী বি এম হারুন অর রশিদ পিনুর নেতৃত্বে তিন শতাধিক লোক কেন্দ্র দখল করে। এ সময় তারা ১৫০টি ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়। এরমধ্যে ১০০টি ব্যালট পেপারে সিল দিয়ে বাক্সে ঢুকিয়ে দেয়। বাকি ৫০টি ব্যালট পেপার ঢুকাতে ব্যর্থ হয়। আমরা বাধা দিতে গেলে আমাদের ওপর হামলা করে। কর্তব্যরত পুলিশ এগিয়ে আসলে তাদের ওপরও হামলা চালায় নৌকার সমর্থকরা। পরে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে দেওয়া হয়। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে বিজিবি, র্যাব ও অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।