কলাপাড়ায়  প্রানঘাতি করোনা ভাইরাসের প্রভাবে  সেলুন বন্ধ থাকায় মাথা ন্যাড়া করার হিড়িক

নাহিদ পারভেজ, কলাপাড়া প্রতিনিধি :-প্রানঘাতি করোনা ভাইরাসের প্রভাবে কলাপাড়ায় অঘোষিত লকডাউন চলছে। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে বের হচ্ছে না। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দোকান ছাড়া সব দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। বন্ধ রয়েছে  সেলুন  চুল কাটাতে না পেরে ব্যতিক্রম উদ্যোগ নিয়েছে স্থানীয় যুবকরা । সেচ্ছায় মাথা ন্যাড়া হয়েছেন অনেকেই।

বেশ কিছুদিন ধরেই কলাপাড়ার বেশ কিছু  এলাকার শিশু ও কিশোরদের মাথা ন্যাড়া করা একটি ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

একটি এলাকায়  একই সাথে ১০/১৫ জন শিশু ও কিশোর মাথা ন্যাড়া করেছে। স্থানীয় এক যুবক জানায়, করোনা ভাইরাসের কারনে বাজার লকডাউন থাকায় আমরা চুল কাটাতে পারছিলাম না। চৈত্রের প্রচন্ড তাপদাহ থেকে একটু স্বস্তি পাওয়ার আশায় মাথা ন্যাড়া করেছি।

কলাপাড়া নরসুন্দর সমবায় সমিতির সভাপতি শ্যামল চন্দ্র বলেন  বিশ্বজুড়ে যে মহামারী করোনাভাইরাস শুরু হয়েছে। সেই প্রভাবে দেখা যায় একটা সেলুন খোলা রাখলে মানুষের সংস্পর্শে আসবে এবং তাকে স্পর্শ করতে হবে সেদিক বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের  নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা সেগুলো বন্ধ রেখেছি।

এদিকে কলাপাড়া, মহিপুর, কুয়াকাটা, চাপলি বাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় শিশু-কিশোরসহ নানা বয়সের মানুষের মাথা ন্যাড়া হওয়ার বিভিন্ন চিত্র দেখা গেছে।

নরসুন্দার সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক নরেশ চন্দ্র শীল বলেন করোনাভাইরাস এর প্রভাব পড়েছে আমরা নিজেরা সতর্ক এবং অন্যকে সতর্ক রাখার জন্য আমাদের কলাপাড়া উপজেলা যে সেলুন গুলো আছে সেগুলো বন্ধ রেখেছে এবং বন্ধ রাখার জন্য আদেশ দিয়েছে।

তবে আমাদের কলাপাড়া পৌরসভার ৫২ টি সেলুন রয়েছে তারা খুব কষ্টে এবং খুব অভাবে দিন কাটাচ্ছে। তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে চুল কাটার জন্য যাতে তারা মোটামুটি খেয়ে দিন কাটাতে পারে।

এদিকে কিছু নরসুন্দর সমবায় সমিতির দোকান মালিকদের সাথে কথা বল্লে তারা বলেন দীর্ঘদিন আমাদের দোকান বন্ধ থাকার কারণে আমরা অনেক লোকসানে আছি। কাস্টমার মোবাইলে কল করলে বাড়িতে গিয়ে আমাদের চুল কাটতে হয়। তবে আর্থিক সাহায্য পেলে বাড়িতে বসে বাচ্চা দের নিয়ে খেয়ে দিন কাটাতে পারবো।